মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১ | ৬ মাঘ ১৪২৭

জগন্নাথপুরে সেতু ধসে ভোগান্তিতে ৩০ গ্রামের বাসিন্দা



জগন্নাথপুরের কলকলিয়া-সাদিপুর-তেলিকোণা সড়কের একটি সেতু ধসে পড়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়েছে। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন প্রায় ৩০ গ্রামের মানুষ।

শুক্রবার (২০ ডিসেম্বর) ভোররাতে ওই সড়কের আটপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নিকটবর্তী সেতুর ওপরের বিভিন্ন অংশ ভেঙে নিচে পড়ে সব ধরনের যান বাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় কাঁচা রাস্তা দিয়ে বিকল্প পথে ভোগান্তির মধ্যদিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে এসব এলাকার বাসিন্দাদের।

স্থানীয় এলজিইডি ও এলাকাবাসী জানান, জগন্নাথপুর উপজেলা কলকলিয়া ইউনিয়নের মধ্য দিয়ে বয়ে যাওয়া জগন্নাথপুরের কলকলিয়া-সাদিপুর-তেলিকোণা সড়কের আটপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় এলাকায় কয়েকবছর আগে সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের অর্থায়নে একটি সেতু নির্মাণ করা হয়েছিল। দীর্ঘদিন ধরে সেতুটি সংস্কারের অভাবে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠলেও ওই টনক নড়ছিলো না কর্তৃপক্ষের। কিন্তু শুক্রবার ভোররাতে সেতুর ক্ষতিগ্রস্ত অংশ ভেঙে পড়ে। এজন্য ওই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন চলাচলকারী কলকলিয়া ইউনিয়নের আটপাড়া, বালিকান্দি, সাংঙ্গিরগাঁও, গলাখাই, সাদিপুর, কাদিপুর, মোল্লারগাঁও, জগদ্বিপুরম, শ্রীধরপাশা, কামারখাল, তেলিকোণা, কান্দারগাঁও, নোয়াগাঁওসহ প্রায় ৩০ গ্রামের মানুষ সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েন। বিকল্প পথ হিসেবে আটপাড়া বালিকান্দি গ্রামের কাঁচা রাস্তা দিয়ে কষ্টভোগ করে চলাচল করতে হচ্ছে তাদের।

স্থানীয় ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুল হাসিম জানান, সেতুটির ওপরের বিভিন্ন স্থানে ভেঙে নিচে পড়ে যাওয়ায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে এই সড়ক দিয়ে কলকলিয়া ইউনিয়ন ও পার্শ্ববর্তী দিরাই উপজেলার প্রায় ৪০ গ্রামের লোকজন ভোগান্তিতে পড়েছেন। কারণ ওই সড়ক দিয়ে উপজেলা সদর ও কলকলিয়া ইউনিয়নে যাতায়াত করতে হয়।

তিনি বলেন, বিকল্প যাতায়াতের পথ হিসেবে গ্রামের ভেতরের কাঁচা রাস্তা দিয়ে কষ্ট করে যান চলাচল করছে। আবার কেউ কেউ পায়ে হেঁটে চলাফেরা করতে হচ্ছে। এতে সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েছেন মানুষ।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল জগন্নাথপুর উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) গোলাম সারোয়ার বলেন, সেতুটি অনেকদিন ধরেই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় ছিল। ইতোমধ্যে সেতুটি পূর্ণ নির্মাণের জন্য আমরা জরুরি ভিত্তিতে ১৮ লাখ টাকা টেন্ডার প্রক্রিয়ার পর কাজ শুরু করা হয়েছে। দ্রুত এ সমস্যার লাঘব হবে বলে জানান তিনি।